চাষিদের লোকসান ঠেকাতে ক্ষেত থেকে সবজি কিনছে সেনাবাহিনী

আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় সাতক্ষীরায় এবার সবজির আবাদ ভালো হয়েছে। তবে করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে বিপাকে পড়েছেন সাতক্ষীরার সবজি চাষিরা। এ অবস্থায় চাষিদের লোকসান ঠেকাতে সেনাপ্রধানের নির্দেশে চাষিদের কাছ থেকে সবজি কিনছেন সেনাসদস্যরা।

মঙ্গলবার (০৫ মে) সকালে সাতক্ষীরার পাটকেলঘাটা থানার ধানদিয়া এলাকায় কৃষকদের কাছ থেকে পাঁচ মণ সবজি কিনেছে সেনাবাহিনী।

যশোর সেনানিবাসের সৈনিকদের খাবারের জন্য এসব সবজি কেনা হয়। ন্যায্য দামে মাঠ থেকে সবজি বিক্রি করতে পেরে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন কৃষকরা। সেনাবাহিনীর কেনা সবজির মধ্যে রয়েছে, লাউ, বরবটি, শসা, পটল ও বেগুন।

সেনাসদস্যদের কাছে সবজি বিক্রি করে পাচপাড়া গ্রামের কৃষক ছবেদ আলী বলেন, করোনার কারণে আমরা সবজি বাজারে বিক্রি করতে পারছি না। বাজারে লোকসমাগম কম। বাইরের বাজারেও সবজি নেয়া সম্ভব হচ্ছে না। সেনাসদস্যরা মাঠে এসে ন্যায্য দামে সবজি কিনেছেন। এতে একদিকে আমাদের পরিবহন খরচ বেঁচে গেল অন্যদিকে ক্ষতির মুখ থেকে বাঁচলাম। আমাদের ফসল মাঠে নষ্ট হয়নি।

যশোর সেনানিবাসের ৫৫ পদাতিক ডিভিশনের সিনিয়র ওয়ারেন্ট অফিসার সাইদুর রহমান বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে কৃষকদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য সেনাপ্রধানের নির্দেশনায় সবজি কেনা হচ্ছে। এতে কৃষকরা একদিকে যেমন ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা পাবেন অন্যদিকে সৈনিকদেরও সবজির চাহিদা পূরণ হবে। যশোরের সেনাসদস্যদের প্রচুর পরিমাণ সবজির চাহিদা রয়েছে। সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে সবজি কিনে সেই চাহিদা পূরণ করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, নগরঘাটা এলাকায় দ্বিতীয়বারের মতো সবজি কেনা হলো। পর্যায়ক্রমে বিভিন্ন এলাকা থেকে আগামী এক মাস এভাবে সবজি কেনা হবে। কৃষকরা যাতে ন্যায্য দাম থেকে বঞ্চিত না হন; সেই সঙ্গে আর্থিক ক্ষতি না হয় সেজন্যই সেনাবাহিনীর এই উদ্যোগ।আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় সাতক্ষীরায় এবার সবজির আবাদ ভালো হয়েছে। তবে করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে বিপাকে পড়েছেন সাতক্ষীরার সবজি চাষিরা। এ অবস্থায় চাষিদের লোকসান ঠেকাতে সেনাপ্রধানের নির্দেশে চাষিদের কাছ থেকে সবজি কিনছেন সেনাসদস্যরা।

মঙ্গলবার (০৫ মে) সকালে সাতক্ষীরার পাটকেলঘাটা থানার ধানদিয়া এলাকায় কৃষকদের কাছ থেকে পাঁচ মণ সবজি কিনেছে সেনাবাহিনী।

যশোর সেনানিবাসের সৈনিকদের খাবারের জন্য এসব সবজি কেনা হয়। ন্যায্য দামে মাঠ থেকে সবজি বিক্রি করতে পেরে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন কৃষকরা। সেনাবাহিনীর কেনা সবজির মধ্যে রয়েছে, লাউ, বরবটি, শসা, পটল ও বেগুন।

সেনাসদস্যদের কাছে সবজি বিক্রি করে পাচপাড়া গ্রামের কৃষক ছবেদ আলী বলেন, করোনার কারণে আমরা সবজি বাজারে বিক্রি করতে পারছি না। বাজারে লোকসমাগম কম। বাইরের বাজারেও সবজি নেয়া সম্ভব হচ্ছে না। সেনাসদস্যরা মাঠে এসে ন্যায্য দামে সবজি কিনেছেন। এতে একদিকে আমাদের পরিবহন খরচ বেঁচে গেল অন্যদিকে ক্ষতির মুখ থেকে বাঁচলাম। আমাদের ফসল মাঠে নষ্ট হয়নি।

যশোর সেনানিবাসের ৫৫ পদাতিক ডিভিশনের সিনিয়র ওয়ারেন্ট অফিসার সাইদুর রহমান বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে কৃষকদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য সেনাপ্রধানের নির্দেশনায় সবজি কেনা হচ্ছে। এতে কৃষকরা একদিকে যেমন ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা পাবেন অন্যদিকে সৈনিকদেরও সবজির চাহিদা পূরণ হবে। যশোরের সেনাসদস্যদের প্রচুর পরিমাণ সবজির চাহিদা রয়েছে। সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে সবজি কিনে সেই চাহিদা পূরণ করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, নগরঘাটা এলাকায় দ্বিতীয়বারের মতো সবজি কেনা হলো। পর্যায়ক্রমে বিভিন্ন এলাকা থেকে আগামী এক মাস এভাবে সবজি কেনা হবে। কৃষকরা যাতে ন্যায্য দাম থেকে বঞ্চিত না হন; সেই সঙ্গে আর্থিক ক্ষতি না হয় সেজন্যই সেনাবাহিনীর এই উদ্যোগ।

Facebook Comments

Related Articles