ছাত্র অধিকার পরিষদের প্রতারণাঃ জবি’র এক ব্যানারে তোলা টাকা অন্য নামে ব্যবহার

ডাকসু ভিপি নুরুল হক নুরের সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন তার একটি স্ট্যাটাসে দাবী করেন, তার সংগঠন দেশের বিভিন্ন ক্যাম্পাসের ৯২১ জন শিক্ষার্থীকে ১১ লক্ষ ২ হাজার টাকা সহায়তা করে। এর মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩০৭ জনকে ৩ লাখ ৬৮ হাজার টাকা ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩১৪ জনকে ৪ লাখ ২২ হাজার টাকা দিয়ে সহায়তার দাবি করা হয়। একই তথ্যে কিছু জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় সংবাদ পরিবেশনা করা হয়। এতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গতকাল থেকেই প্রতিবাদ জানাচ্ছেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা৷

তারা বলছেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪ লাখ ২২ হাজার টাকার এই সহায়তাটার পুরোটাই এসেছে মূলত জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে গড়ে উঠা প্ল্যাটফর্ম ‘করোনা মোকাবেলায় জবিয়ানদের পাশে জবিয়ান’ থেকে। এখানে দলমত নির্বিশেষে সাবেক বর্তমানরা এগিয়ে এসেছিল। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের এই সহায়তাটা কেবলমাত্র একটি স্ট্যাটাসের মাধ্যমে নিজেদের সংগঠনের নামে চালিয়ে প্রতারণাই করেছে নুরুল হক নুরুর সংগঠন। আজ পত্রিকাগুলোর খবরেও এটা প্রতিষ্ঠা করতে চেষ্টা করেছে ছাত্র অধিকার পরিষদ।

গ্রুপটিতে জবাবদিহিতা চাওয়ায় শিক্ষার্থীদের পোস্ট ডিলেট করা হয় এবং কমেন্ট অপশন বন্ধ করে দেওয়া হয়। এরপর শিক্ষার্থীদের ক্রমাগত চাপের মুখে বিবৃতিতে দুঃখ প্রকাশ করে ছাত্র অধিকার পরিষদ এবং একটি জাতীয় দৈনিক তাদের সংবাদের অনলাইন ভার্সনটি এডিট করে৷ হাসান অাল মামুনও তার পোস্ট এডিট করে এবং পরবর্তীতে অার একটা পোস্ট করে দুঃখপ্রকাশ করে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের এমবিএ’র শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগ নেতা ডিএম বখতিয়ার জানান “আমরা হতবাক হয়ে গিয়েছি এই কান্ডে, তাদের এইসব সূক্ষ্ম কারসাজির রাজনীতি থেকে সরে প্রকৃত অর্থেই শিক্ষার্থীদের কল্যাণে কাজ করার আহবান জানাই। এইরকম প্রতারণায় সাবেকরা পৃষ্ঠপোষকতা করতে আস্থা হারাবে। “

Facebook Comments

Related Articles