রাস্তা থেকে চুরি করা ইটের ভারে ডুবে গেলো নৌকাটি

স্থানীয়দের অভিযোগ, বিষয়টি ধামপাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করছেন অভিযুক্তরা

রাতের আঁধারে পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) রাস্তার ইট চুরি করে নৌকায় তোলার সময় স্থানীয়দের হাতে ধরা পড়েছেন এক ব্যক্তি। তিনি গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া উপজেলার ডুমুরিয়া ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য সুখেন রায়ের বড় ভাই বাবু রায়।

রবিবার (২৪ মে) ভোরে ইউনিয়নের ভৈরব নগর গ্রামে ঘটনাটি ঘটে। স্থানীয়দের অভিযোগ, বিষয়টি ধামপাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করছেন অভিযুক্তরা।

সরকারি রাস্তার ইট চুরির ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী মো. তায়েব শেখ ঢাকা ট্রিবিউনকে জানান, রবিবার ভোরে সেহরি খেয়ে হাঁটতে বেরিয়ে দেখি নদীর পাড়ের রাস্তা থেকে কয়েকজন লোক ইট তুলে নৌকায় ভরছে। কিন্তু ইটের পরিমাণ বেশি হওয়ায় নৌকাটি ডুবে যায়। চিৎকার করে বললে পরিচয় জানতে চাইলে মিথ্যা পরিচয় দেন বাবু রায়।

“নিশ্চিত হওয়ার জন্য আরও কাছাকাছি গেলে তারা আমাকে নৌকার বৈঠা দিয়ে আঘাত করার হুমকি দেয়। তবুও আমি কাছে যাই এবং বাবু রায়সহ কয়েকজনকে দেখতে পাই। এরপর তারা আমাকে জাপটে ধরে। আমার চিৎকারে পরিবারের লোকজন চলে আসে। অবস্থা বেগতিক দেখে মুখ ঢেকে রাস্তায় শুয়ে পড়ে কান্নাকাটি করতে থাকেন বাবু রায়।”

আরেক স্থানীয় বাসিন্দা রাজু পালের অভিযোগ, ভাই ইট চুরি করতে গিয়ে ধরা পড়েছেন এই অভিযোগ করায় মেম্বার সুখেন ও তার ছেলে আমাকে মারপিট করেছে।

এছাড়া, ইউপি সদস্য সুখেন স্থানীয়দের হুমকি দিয়ে বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করছেন বলে অভিযোগ করেছেন একাধিক স্থানীয়।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত বাবু রায়ের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি। তবে তার সহোদর ইউপি সদস্য সুখেন রায় মুঠোফোনে ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, “ভাইয়ের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে সম্পর্ক নেই। তার কোনো বিষয়ে কিছু বলতে পারব না।”

স্থানীয়দের মারধরের বিষয়টি অস্বীকার করে তিনি আরও বলেন, আমি বা আমার ছেলে কাউকে মারিনি। উল্টো তারাই আমাদের মেরেছে।

এ বিষয়ে জানতে টুঙ্গিপাড়া পাউবো’র সহকারী প্রকৌশলী জাকারিয়া ফেরদৌসের মুঠোফোনে কল করলে তিনি রিসিভ করেননি।

আর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এএফএম নাসিম বলেন, এখন পর্যন্ত এ বিষয়ে কোনো অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Facebook Comments

Related Articles