বাসভাড়া বৃদ্ধির প্রস্তাব অযৌক্তিক : নাগরিক সমাজ

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকানোর লক্ষ‍্যে সব ধরনের বাস-মিনিবাসে আসন সংখ্যার অর্ধেক যাত্রী পরিবহনের কথা বলে ৮০ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধির প্রস্তাবে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন অধিকারকর্মীরা।

আজ শনিবার এক যৌথ বিবৃতিতে গ্রিন ক্লাব অব বাংলাদেশের (জিসিসি) সভাপতি  নুরুর রহমান সেলিম, নৌ, সড়ক ও রেলপথ রক্ষা জাতীয় কমিটির সভাপতি হাজী মোহাম্মদ শহীদ মিয়া এবং শিপিং অ্যান্ড কমিউনিকেশন রিপোর্টার্স ফোরামের (এসসিআরএফ) সভাপতি আশীষ কুমার দে এই প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

বিবৃতিতে তারা বলেন, বাস মালিকেরা ভাড়া বাড়ানোর কৌশল হিসেবে সরকারের প্রস্তাব অনুযায়ী স্বাস্থ‍্যবিধি মেনে আসন সংখ‍্যার অর্ধেক যাত্রী পরিবহনের সিদ্ধান্ত মেনে নিয়েছেন। কিন্তু ভাড়া বৃদ্ধির গেজেট প্রকাশের পরই মালিকরা এই শর্ত বেমালুম ভুলে যাবেন। এ ছাড়া নগর পরিবহন বাসে তো এ নিয়ম মানাই হবে না। অতীতে বিভিন্ন সময়ে জ্বালানি তেলের মূল‍্য বৃদ্ধির পরিপ্রেক্ষিতে বাসভাড়া বৃদ্ধির পর তেলের দাম কমলেও ভাড়া কখনও কমানো হয়নি বলে বিবৃতিতে অভিযোগ করা হয়।

নেতৃবন্দ বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে বিশ্ববাজারে তেলের দাম অনেক কমে গেছে। সরকারের উচিৎ দেশে জ্বালানির মূল‍্য কমিয়ে পরিবহন ভাড়া স্থিতিশীল রাখা। এ ছাড়া নেতৃবৃন্দ গণপরিবহন সংকট নিরসন ও বেসরকারি বাসমালিক ও শ্রমিকদের অর্থনৈতিক নিপীড়ন থেকে সাধারণ জনগণকে সারা দেশে বিআরটিসির সেবার পরিধি ও মান বৃদ্ধির জন‍্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

Facebook Comments

Related Articles