পরিস্থিতির অবনতি হলে কঠোর সিদ্ধান্ত: কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, হুড়োহুড়ি, বাড়তি যাত্রী হওয়া, স্বাস্থ্যবিধি না মানা দেশকে আরও সংকটে নিমজ্জিত করতে পারে। পরিস্থিতির যদি আরও অবনতি হয়, তাহলে জনস্বার্থে সরকার আবারও কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হবে।

সংকট সমাধানে সরকার দক্ষতার পরিচয় দিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, খাদ্যসহায়তা, আর্থিক সহায়তাসহ নানা উদ্যোগের ফলে আল্লাহর রহমতে এখন পর্যন্ত একজন মানুষও না খেয়ে মরেনি।

আজ সোমবার সরকারি বাসভবন থেকে এক ব্রিফিংয়ে এসব কথা বলেন সড়ক পরিবহনমন্ত্রী। তিনি বলেন, আজ থেকে শর্ত সাপেক্ষে পরিবহন চলছে। হুড়োহুড়ি, বাড়তি যাত্রী হওয়া, স্বাস্থ্যবিধি না মানা দেশকে আরও সংকটে নিমজ্জিত করতে পারে। পরিস্থিতির যদি আরও অবনতি হয়, তাহলে জনস্বার্থে সরকার আবারও কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হবে।

অতিরিক্ত যাত্রী না হতে সাধারণ মানুষকে অনুরোধ করেছেন মন্ত্রী। এ ছাড়া পরিবহনমালিক ও শ্রমিকদের মানবিক দৃষ্টান্ত স্থাপনের অনুরোধ করেছেন।

মন্ত্রী কাদের বলেন, অর্ধেক আসন খালি রেখে গাড়ি চালনায় সরকার ভাড়া সমন্বয় করেছে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, সংকট মোকাবিলায় উন্নত দেশগুলোও হিমশিম খাচ্ছে। বিশ্বব্যাপী শেখ হাসিনার সরকারের সংকট সমাধানের সাহসী ও মানবিক প্রয়াস প্রশংসিত হয়েছে। আর বিএনপি খুঁজে পাচ্ছে সমন্বয়হীনতা। নিজেরা অসহায় কর্মহীন মানুষের পাশে দাঁড়াতে নির্লজ্জভাবে ব্যর্থ হয়েছে। দায়িত্বহীন বক্তব্য রাখছে, বিষোদগার করছে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিভিন্ন দেশে আক্রান্ত ও মৃত্যু উদ্বেগজনক পর্যায়ে। তবু লকডাউন শিথিল করছে। কোথাও তুলে নিয়েছে। পরিবর্তিত প্রেক্ষাপটে বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আমাদেরও ভারসাম্যপূর্ণ অবস্থান বেছে নিতে হবে। সবাইকে সচেতন হয়ে ঘরকে সুরক্ষার দুর্গ ঘরে তোলার আহ্বান জানান তিনি।

Facebook Comments

Related Articles