আপত্তিকর টিকটক ভিডিও মুছে দিচ্ছে এবং সহস্রাধিক ইউটিউব চ্যানেল বাতিল করেছে গুগল

রাতারাতি টিকটকের রেটিং পয়েন্ট ৪-৫ থেকে ১.২ এ নেমে আসার জেরে বড় ধরনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে গুগল। জানা গেছে, গুগল তার প্লে স্টোর থেকে কয়েক মিলিয়ন নেতিবাচক টিকটক ভিডিও মুছে দিয়েছে।

বিশেষ করে ভারতের একজন টিকটক সেলিব্রেটির কারণে ঘটনাটি ঘটেছে। জানা গেছে, ফায়জাল সিদ্দিকি নামে একজন টিকটকে আপত্তিকর ভিডিও পোস্ট করেন। ওই ভিডিওতে তিনি একজন নারীকে এসিড মারেন। আসলে তিনি পানি ছুঁড়ে মেরেছিলেন। কিন্তু মেকআপরে সাহায্যে এসিড নিক্ষেপ করার পরের ক্ষত দেখানো হয়েছে এক নারীর মুখে। আর তা নিয়ে সমালোচনা শুরু হয়।

পরে ফয়জাল সিদ্দিকির ভিডিও মুছে দেয় গুগল। এর জেরে ফয়জাল ক্ষমা চেয়ে পোস্টও দেন।

টিকটকের মুখপাত্র বলেন, যা অন্যদের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন তোলে, সে ধরনের আধেয় আমরা রাখবো না। শারীরিকভাবে কাউকে আঘাত করা এবং বিশেষ করে নারীদের প্রতি সহিংসতা দেখানো আমাদের নীতিমালার সঙ্গে যায় না।

তিনি আরো বলেন, যারা আমাদের নীতিমালা লঙ্ঘন করবেন, তাদের কনটেন্ট মুছে দেওয়া হবে, সেই অ্যাকাউন্ট বাতিল করা হবে এবং তাদের বিরুদ্ধে আইনপ্রয়োগকারী সংস্থা পদক্ষেপ নিতে পারবে।

গুজব, মিথ্যা প্রচারণা ও হ্যাকিংয়ের বিরুদ্ধে অভিযান চালাচ্ছে প্রযুক্তি জায়ান্ট গুগল। এরই অংশ হিসেবে গত মার্চ থেকে এ পর্যন্ত বিপুল সংখ্যক জিমেইল অ্যাকাউন্ট ও ১ হাজারের অধিক ইউটিউব চ্যানেল অপসারণ করেছে বলে জানায় প্রতিষ্ঠানটি। ইউটিউব হচ্ছে গুগলের অন্যতম অঙ্গ প্রতিষ্ঠান। গুগল জানায়, তারা তথ্যপ্রযুক্তি খাতের অন্যান্য প্রতিষ্ঠনের সঙ্গেও নিয়মিতভাবে এসব তথ্য বিনিময় করছে।

বলা হয়, সমন্বতি মিথ্য প্রচারণায় যুক্ত থাকায় মার্চ মাসে ভারত সংশ্লিষ্ট তিনটি বিজ্ঞাপনী অ্যাকাউন্ট, একটি অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট ও ১১ টি ইউটিউব চ্যানেল বাদ দেয়া হয়েছে। গুগল জানায়, ‘গত মার্চ মাস থেকে আমরা ১ হাজারের বেশি ইউটিউব চ্যানেল সরিয়ে দিয়েছি। যারা একটি বড় প্রচারণার অংশীদার হয়ে সমন্বিতভাবে কাজ করতো বলে আমরা মনেকরি। এসব চ্যানেল বেশিরভাগই অপ্রয়োজনীয় ও অরাজনৈতিক কনটেন্ট আপলোড করতো। কিন্তু অল্পকিছু চ্যানেল চীনা ভাষায় রাজনৈতিক কনটেন্ট দিতো।’

প্রতিষ্ঠানটি আরও জানিয়েছে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কর্মীসহ মেডিক্যাল এবং স্বাস্থ্যসেবার পেশাদারদের লক্ষ্য করে হ্যাকিং চেষ্টা চলছেই। করোনাভাইরাস মোকাবেলায় বৈশ্বিক প্রচেষ্টার কেন্দ্রে রয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও অন্যান্য প্রতিষ্ঠান। মহামারির তথ্য হাতিয়ে নিতে এই সংস্থাগুলোর ওপর সাইবার হামলাও বেড়েছে অনেকখানি। যাতে রাষ্ট্রের পৃষ্ঠপোষকতা রয়েছে।

গুগলের নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা গত এপ্রিল মাসে তাদের ব্যবহারকারীদের কাছে ১ হাজার ৭৫৫ টি সতর্কবার্তা পাঠিয়েছে। যাদের অ্যাকাউন্টগুলো একদল হ্যাকারের টার্গেটে পরিণত হয়েছে।

Facebook Comments

Related Articles