দর্শকহীন মাঠে বিশ্বকাপ চান না আকরাম

আইসিসি এখনো আনুষ্ঠানিক কিছু বলেনি এ নিয়ে। তবে সাবেক ও বর্তমান ক্রিকেটারদের অনেকেই এ বছর নির্ধারিত সময়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হবে বলে মনে করছেন না। কেউ কেউ বিশ্বকাপ পেছানোরও দাবি তুলেছেন। সেই তালিকায় এবার যোগ হলো পাকিস্তানের কিংবদন্তি বোলার ওয়াসিম আকরামের নামটাও।

করোনাভাইরাসের কারণে অক্টোবর-নভেম্বরে অস্ট্রেলিয়ায় হতে যাওয়া টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পিছিয়ে দেওয়াই যৌক্তিক মনে করেন সাবেক পাকিস্তানি ফাস্ট বোলার। কারণ, এ সময়েও বিশ্ব পুরোপুরি করোনাভাইরাসের প্রভাবমুক্ত থাকবে না। সে কারণে বিশ্বকাপ আয়োজন করলে তা করতে হবে দর্শকশূন্য মাঠে। আর দর্শকশূন্য মাঠে বিশ্বকাপ—এটা ভাবতেই পারছেন না ওয়াসিম আকরাম। এ কারণেই তিনি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পিছিয়ে পড়ে করার পক্ষে কথা বলেছেন।

নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম রাউন্ড শুরু হওয়ার কথা এ বছর ১৮ অক্টোবর, ফাইনাল ১৫ নভেম্বর। কিন্তু ওই সময়ে করোনা সংক্রমন যে অবস্থায় আছে, তাতে ওই সময়ে বিশ্বকাপ আয়োজন করা যাবে কি না, এ নিয়ে শঙ্কায় আয়োজক অস্ট্রেলিয়াই। কিছুদিন আগে মেরিলিবোন ক্রিকেট ক্লাব (এমসিসি) সভাপতি এবং আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) ক্রিকেট কমিটির সদস্য কুমার সাঙ্গাকারাও বলেছেন, বর্তমান বাস্তবতায় এ বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হওয়ার সম্ভাবনা কম বলেই মনে হচ্ছে তাঁর কাছে।

আইসিসি অবশ্য জানিয়েছে, ১০ জুলাই সভার পর বিশ্বকাপের ভবিষ্যৎ জানা যেতে পারে। এমনকি দর্শকহীণ মাঠে খেলা আয়োজন করা যায় কি না, সেটাও ভেবে হচ্ছে। তবে গ্যালারিতে দর্শক ছাড়া বিশ্বকাপ খেলাটাকে খুব একটা সমর্থন করছেন না ওয়াসিম আকরাম। পাকিস্তানের একটি দৈনিকের সঙ্গে সাক্ষাৎকারে বলেছেন, ‘আমার মনে হয় না এটা কোনো ভালো চিন্তা । মাঠে দর্শক ছাড়া বিশ্বকাপ আয়োজন করা কীভাবে সম্ভব? বিশ্বকাপ মানেই হইরই ব্যাপার, বিভিন্ন প্রান্ত থেকে দর্শকরা আসেন তাদের দলকে সমর্থন করতে। দর্শকবিহীন মাঠে সেই আমেজের কিছুই থাকবে না।’

জৌলুশহীন কোনো আয়োজনে না গিয়ে বরং আইসিসিকে আপাতত অপেক্ষা করার পরামর্শ আকরামের, ‘আইসিসি একটা ভালো সময়ের অপেক্ষা করতে পারে। এই মহামারির প্রকোপ কমে গেলে, বিশ্বে নিষেধাজ্ঞা শিথিল হলে তখন বিশ্বকাপ নিয়ে ভাবা যেতে পারে।’এরপর আকরাম বলেছেন, ‌’আমি মনে করি না (এই সময়ে বিশ্বকাপ আয়োজন করার) পরিকল্পনাটা উপযুক্ত। আমি আসলে বলতে চাচ্ছি, দর্শক ছাড়া একটা বিশ্বকাপ কীভাবে হতে পারে!’

Facebook Comments

Related Articles