রোনালদো তাহলে যাবেন কোথায়?

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে থাকতে অনেকের আশা ছিল। রিয়াল মাদ্রিদে থাকতে কথাটা উচ্চারিত হয়েছে সবচেয়ে বেশি। বয়স অনুযায়ী জুভেন্টাসে তা নিয়ে বেশি কথা হওয়াই স্বাভাবিক। তেমন কি হচ্ছে?

রোনালদো রিয়ালেই অবসর নেবেন, এ নিয়ে আলোচনা হয়েছে সবচেয়ে বেশি। ৯ বছর সাধের রিয়ালের হয়ে প্রায় সবকিছু জিতেও পর্তুগিজ তারকা মাদ্রিদে থাকেননি। রিয়ালের সঙ্গে বন্ধন ছিঁড়ে যিনি সব চলে আসতে পারেন, তাঁকে ঘিরে জুভেন্টাস সমর্থকদের আশাও সামান্য। তাই ৩৫ বছর বয়সী রোনালদোর সামনে প্রশ্নটা এখনো জীবন্ত, অবসর নেবেন কোথায়?

কবে অবসর নেবেন সে কথা এখনো জোরেশোরে ওঠেনি। রোনালদোর শারীরিক সামর্থ্য তার বড় কারণ। সে তুলনায় বুট তুলে রাখছেন কোন ক্লাবের হয়ে সে কথার চর্চা সহজ। রোনালদোরই জাতীয় দল সতীর্থ তাতে এক চামচ ঘি ছিটিয়েছেন। সে এমন কেউ যাঁর কথা শুনে বিশ্বাস করতে মন চাইবে। কারণ, শুধু ইউনাইটেডেই নয়, জাতীয় দলেও রোনালদোর আক্রমণের সঙ্গী নানি।

৩৩ বছর বয়সী নানি এখন যুক্তরাষ্ট্রের মেজর লিগ সকার (এমএলএস) দল অরল্যান্ডো সিটির অধিনায়ক। ইএসপিএনকে তিনি জানিয়েছেন, রোনালদো তাঁকে একবার বলেছিলেন, অবসর নিলে সেটি এমএলএস থেকে নেবেন।

রিয়াল ছেড়ে ২০১৮ সালে জুভেন্টাসে যোগ দেন রোনালদো। চুক্তিটা চার বছরের। নানি বলেন, ‘কয়েক বছর আগে সে বলেছে, সম্ভবত আমেরিকাতেই অবসর নেবে। শতভাগ নিশ্চিত করতে পারব না। তবে সম্ভাবনা আছে।’

সম্ভবত বোঝাতে নানির ইঙ্গিত কি ডেভিড বেকহামের প্রতি? এমএলএসের দল ইন্টার মিয়ামির মালিক সাবেক ইংলিশ মিডফিল্ডার। লিওনেল মেসি, রোনালদোকে মিয়ামিতে খেলানোর ইচ্ছার কথা সরাসরি বলেছিলেন বেকহাম। তাই বল এখন রোনালদোর কোর্টে, পাঠাবেন কোথায় সময় হলেই দেখা যাবে।

Facebook Comments

Related Articles