আক্কেলপুরে স্ত্রী হত্যার অভিযোগে স্বামী আটক

জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলার হরিসাড়া গ্রামের রোজিনা বেগম (১৮) নামের এক গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগে পুলিশ তার স্বামী মেহেদি হাসানকে আটক করেছে। আজ শনিবার সকালে পুলিশ ওই গৃহবধূর মরদেহ তার বাবার বাড়ি একই এলাকার গুডুম্বা পূর্বপাড়া গ্রামের পাশের একটি সড়ক থেকে উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে। তার শরীরে ছুরিকাঘাতের চিহ্ন ছিল। পরিবারের দাবি, হত্যার পর স্বামী তার মরদেহ বাবার বাড়ি গুডুম্বা গ্রামের পাশে রাসত্মার ওপর ফেলে পালিয়ে গেছে।

পরিবার ও পুলিশ জানায়, গুডুম্বা পূর্বপাড়া গ্রামের মকবুল হোসেনের মেয়ে রোজিনা বেগমের সাথে দেড় মাস আগে বিয়ে হয় পার্শ্ববর্তী হরিসাড়া গ্রামের মেহেদি হাসানের। রোজিনা মেহেদি হাসানের দ্বিতীয় স্ত্রী। রোজিনা বাবার বাড়ি ছিলেন। শুক্রবার রাতে স্বামী মেহেদি হাসানের সাথে তিনি শ্বশুরবাড়ি যান। শনিবার ভোরে বাবার বাড়ি গুডুম্বা পূর্বপাড়া গ্রামের পাশের সড়ক থেকে পুলিশ তার মরদেহ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় পুলিশ তার স্বামী মেহেদি হাসানকে আটক করেছে।

রোজিনার বাবা মকবুল হোসেন বলেন, মাত্র দেড় মাস আগে মেয়েকে বিয়ে দিয়েছি। শুক্রবার রাতে স্বামীর সাথে মেয়ে শ্বশুরবাড়ি যায়। আর শনিবার সকালে জানতে পারি আমার বাড়ির পাশেই সড়কের ওপর মেয়েটির মরদেহ পড়ে আছে। তাঁর দাবি, স্বামী মেহেদি হাসানই তাকে হত্যা করে দোষ চাপানোর জন্য আমাদের গ্রামের পাশে ফেলে রেখে পালিয়ে গেছেন।

আক্কেলপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আবু ওবায়েদ বলেন, শনিবার সকালে রোজিনা বেগমের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় তার স্বামী মেহেদি হাসানকে আটক করা হয়েছে। মামলার পর তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Facebook Comments

Related Articles