সত্যিই ভারতের কাছে ‘বিশ্বকাপ বিক্রি’ করেছিল শ্রীলঙ্কা?

২০১১ বিশ্বকাপ ফাইনাল নিয়ে টালমাটাল হয়ে পড়েছে শ্রীলঙ্কার ক্রিকেট। ওই বিতর্কিত ফাইনাল নিয়ে আগেও অনেকবার ফিক্সিংয়ের অভিযোগ উঠেছে। এবার মিডিয়ার সামনে সাবেক শ্রীলঙ্কান ক্রীড়ামন্ত্রী মহিন্দানন্দ আলুথগামাগে ভারতের ওই বিশ্বকাপ জয় নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করায় নতুন করে বিতর্কের সূচনা হয়েছে। ঘটনা এতদূর গড়িয়েছে যে, ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ২০১১ বিশ্বকাপ ফাইনাল নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে শ্রীলঙ্কান সরকারের ক্রীড়া মন্ত্রণালয়। চলছে পাল্টাপাল্টি কথার আক্রমণ।

২০১১ সালে ক্রীড়ামন্ত্রী থাকা মহিন্দানন্দ আলুথগামাগে বলেছিলেন, ভারতের কাছে ২০১১ বিশ্বকাপ ‘বিক্রি’ করে দিয়েছিল শ্রীলঙ্কা। এরপর সেই ফাইনালের অধিনায়ক কুমার সাঙ্গাকারা আর মাহেলা জয়াবর্ধনে টুইট করে তীব্র প্রতিবাদ জানান। এরপর আলুথগামাগে আবারও বলেন, ‘মাহেলা বলছে যে, সার্কাস শুরু হয়েছে। কিন্তু সাঙ্গা ও মাহেলা এটা নিয়ে এত চিন্তিত কেন সেটাই বুঝতে পারছি না। আমি তো কোনো ক্রিকেটারের নাম বলিনি। টিভি চ্যানেলে দেওয়া আমার আধ ঘন্টার ইন্টারভিউয়ের মাত্র২ মিনিট নিয়ে এত আলোচনা হচ্ছে। অর্জুনা রানাতুঙ্গাও তো আগে ফিক্সিংয়ের ব্যাপারে মুখ খুলেছিল।’

২০১৭ সালের জুলাইয়ে রানাতুঙ্গা বিশ্বকাপ ফাইনালে শ্রীলঙ্কার পরাজয় নিয়ে তদন্তের দাবি তুলেছিলেন। আলুথগামাগের বক্তব্যের পর আবারও টুইট করেন জয়াবর্ধনে। তিনি লিখেন, ‘যখন কেউ ২০১১ বিশ্বকাপ ফাইনাল আমরা বিক্রি করে দিয়েছি বলে অভিযোগ তোলে, তখন সেটা আমাদের জন্য অবশ্যই বড় ব্যাপার। কারণ, একাদশে না থাকা কারও পক্ষে কীভাবে ফিক্সিং করা সম্ভব, সেটা বুঝতে পারছি না। আশা করছি, ৯ বছর পর আমরা এই ব্যাপারে আমরা জানতে পারব।’

এসব পাল্টাপাল্টি বাকবিতণ্ডার মাঝে এবার তদন্ত শুরু করেছে শ্রীলঙ্কার ক্রীড়া মন্ত্রণালয়। ১৫ দিন পর পর তদন্তের অগ্রগতি সম্পর্কে জানাতে হবে তদন্ত দলকে। ক্রিকেট বিশ্লেষকেরা বলছেন, যে ম্যাচ নিয়ে এত বছর পরেও আলোচনা থামছে না, সেই ম্যাচে আসলেই কি কিছু ছিল? ভারতের দ্বিতীয় বিশ্বকাপ জয় কি সাজানো? লঙ্কান সরকারের তদন্ত শেষ হলে হয়তো এসবের উত্তর পাওয়া যাবে।

Facebook Comments

Related Articles