১০ লাখ কিট ব্যবহার করা হচ্ছেনা মিঠু সিন্ডিকেটের কারণেঃ এমপি একরামুল

সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরী আবার এলেন ফেসবুক লাইভে। এবার তিনি আরও বিস্ফোরক! আঙ্গুল তুললেন সরাসরি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ‘মিঠু সিন্ডিকেটের’ দিকে। প্রধানমন্ত্রীর কাছে এই সিন্ডিকেটটি ভেঙে দেওয়ার অনুরোধ জানালেন নোয়াখালী-৪ আসনের এই সাংসদ। তিনি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্যও।

সোমবার (২২ জুন) বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে সাংসদ একরামুল করিম চৌধুরী তার ফেসবুক আইডিতে লাইভে এসে অভিযোগ করেন, ‘আজ নোয়াখালী, ফেনী ও লক্ষ্মীপুরের করোনা পরীক্ষা বন্ধ কিটের অভাবে। এই কিটের অভাবের কারণে মানুষের মনে একটা হাহাকার বিরাজ করছে। শুনেছি, আজ স্বাস্থ্যমন্ত্রী নিজেই নাকি বলেছেন দেশে কিটের সংকটের কথা। কিন্তু আমি যত দূর জানি, তিন-চারটি কোম্পানি, ব্যবসায়ী প্রায় ১০ লাখ কিট এনে রেখেছে। তারা দিতে পারছে না “মিঠু সিন্ডিকেটের” কারণে।’

তিনি বলেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মিঠু সিন্ডিকেট যতক্ষণ পর্যন্ত ভাঙা না যাবে, তত দিন পর্যন্ত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কখনো ভালো অবস্থানে থাকবে না।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি অনুরোধ জানিয়ে সাংসদ একরামুল করিম চৌধুরী বলেন, ‘বাংলাদেশ থেকে দু-তিন দিনের মধ্যে যেভাবে আপনি ক্যাসিনোকে ধ্বংস করেছেন, মানুষের কাছে জনপ্রিয়তার শীর্ষে পৌঁছে গিয়েছেন, আপনার কাছে অনুরোধ, আপনি স্বাস্থ্যসেবার এই সিন্ডিকেটটি ভাঙার চেষ্টা করুন। এই আজগুবি বিভাগ থেকে যদি সিন্ডিকেটটা ভাঙতে পারেন, তাহলে দেশের মানুষ অনেক সুফল পাবে।…কারণ, ওই সিন্ডিকেট স্বাস্থ্য বিভাগটিকে কাবু করে রেখেছে।’

তিনি বলেন, ‘আমি দু-তিন দিন আগে বলেছিলাম, স্বাস্থ্য বিভাগ একটা আজগুবি বিভাগ, কিন্তু এখন আমার কাছে মনে হচ্ছে, এটা আজগুবি নয়, মহা আজগুবি বিভাগ।’

এর আগে গত ১৫ জুনও ফেসবুক লাইভে এসে তিনি বলেছিলেন, ‘মন্ত্রণালয় চালাতে তীক্ষ্ণ বুদ্ধি লাগে। শুধু অর্থনীতির দিকে তাকালে হবে না, পকেট ভারীর দিকে তাকালেও হবে না। কি করবো এই টাকা দিয়ে কবরে তো নিয়ে যেতে পারবো না। আমি ডিসি সাহেবকে বললাম অক্সিজেনসহ দশ বেডের সাময়িক ব্যবস্থা করতে, টাকা যা লাগে আমি দেব।’

নোয়াখালী-৪ আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ একরামুল করিম চৌধুরী দেশের স্বাস্থ্যখাত নিয়ে ফেসবুকে এক ভিডিও বার্তায় ক্ষোভ ঝাড়েন এভাবেই। সেখানে তিনি আঙ্গুল তোলেন সরাসরি মন্ত্রণালয়কে লক্ষ্য করে।

ওই লাইভে তিনি বলেন, ‘সরকার ঘোষণা করলো নোয়াখালীকে ১০টা আইসিইউ দেবে, এটার কোনো আওয়াজ নাই দেখি। আসলে এ ডিপার্টমেন্টটা কে চালাচ্ছে। আমি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্ট্যান্ডিং কমিটির মেম্বার, কিন্তু আমার কাছেই মনে হলো এটা আজগুবি ডিপার্টমেন্ট (বিভাগ)। এটার কোনও আগা নেই, মাথা নেই।

Facebook Comments

Related Articles