অসহায়, গরীব ও খেটে খাওয়া মানুষের ফি দিয়ে টেস্ট করানোর সামর্থ্য নেইঃ ওবায়দুল কাদের

খেটে খাওয়া অসহায় মানুষের সামর্থ্য বিবেচনায় নিয়ে করোনা পরীক্ষার ফি নিয়ে সিদ্ধান্ত দিতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এমপি। তিনি বলেন, ‘অসহায়, গরীব ও খেটে খাওয়া মানুষের করোনার লক্ষণ দেখা দিলে ফি দিয়ে পরীক্ষা করানোর সামর্থ্য নেই। এতে তারা পরীক্ষার বাইরে থেকে যাবে এবং সংক্রমণ দ্রুতগতিতে ছড়িয়ে পড়বে।’

বুধবার সকালে সংসদ ভবন এলাকায় নিজ বাসভবনে নিয়মিত ব্রিফিং-এ একথা বলেন মন্ত্রী। সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের উপপ্রধান তথ্য কর্মকর্তা মো. আবু নাছের সাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রসঙ্গত, সোমবার (২৯ জুন) এক পরিপত্র জারি করে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ জানিয়েছে, এখন থেকে বুথে গিয়ে নমুনা দিয়ে পরীক্ষা করানোর জন্য ২০০ টাকা ফি দিতে হবে। হাসপাতালে ভর্তি থাকা রোগীদের জন্যও লাগবে ২০০ টাকা ফি। বাসায় গিয়ে নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য দিতে হবে ৫০০ টাকা ফি।

কোরবানির পশুরহাট সম্পর্কে সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘যেখানে সেখানে পশুরহাটের অনুমতি দেওয়া যাবে না। প্রয়োজনে হাটের সংখ্যা কমিয়ে আনতে হবে। এছাড়া মহাসড়কের ওপর কিংবা পাশে হাট বসানো যাবে না। পশুরহাটে কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার লক্ষ্যে সংশ্লিষ্টদের আগেই করণীয় নির্ধারণ করতে হবে।‘

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক জানান, সরকার আরও কিছু এলাকায় সংক্রমণের উচ্চ ঝুঁকি বিবেচনায় লকডাউনের সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে। তিনি আপাত বিচ্ছিন্নতাকে সবার জন্য কল্যাণের উল্লেখ করে বলেন, ‘সাময়িক এ বিচ্ছিন্নতা দীর্ঘ মেয়াদে প্রিয়জনদের সান্নিধ্য নিশ্চিত করার জন্যই।’

Facebook Comments

Related Articles