সাহেদ সাবরিনা না, মানবিক নাদেল কে নিয়ে আলোচনা করুন

শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল, কেন্দ্রীয় সাংঠনিক সম্পাদক বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, সমন্বয়কারী, স্বাস্থ্য সহায়তা সিলেট, এই করোনা কালে আবির্ভূত হয়েছেন একজনের সুপার হিরো হিসেবে।

মার্চ মাস থেকেই জনাব নাদেল ও তারার টিম পিপিই বিতরণ শুরু করেন সিলেট এর বিভিন্ন মেডিকেল কলেজ ও চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানে। তারই সাথে চলতে থাকে দরিদ্রদের মাঝে খাবার ও সাহায্য বিতরণ। এই মানবিক উদ্যোগ গুলোর পাশপাশি নিউইয়র্ক ভিত্তিক একটি সংস্থা এস জে ইনোভেশন সিলেট ও দেশের বিভিন্ন জায়গায় ৫০ জন চিকিৎসক আর টিম নিয়ে চালু করেন ফ্রি টেলিমেডিসিন সেবা। আর সাথে করোনা রোগী পরিবহনের জন্য ফ্রি অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস চলতে থাকে জনগণের জন্য বিভিন্ন পরামর্শমূলক অনুষ্ঠান।

তারপর যখন দেখা গেলো চিকিৎসা স্বল্পতার ব্যপারে বিভিন্ন অভিযোগ আসছে, জনাব নাদেল হাসপাতালের গুলো তে চিকিৎসা সেবা যেন নিশ্চিত হয় এই ব্যপারে পদক্ষেপ নেয়া শুরু করলেন। চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের সার্বিক ব্যপারেও ছিলেন তৎপর ।এই সবের পাশপাশি বিভিন্ন সাংঠনিক কাজকর্ম তো ছিলোই, নিজেই আক্রান্ত হলেন করোনায়। কিন্তু দমে না গিয়ে আক্রান্ত অবস্থাতেই ঘরে বসে তদারকি করতে থাকেন তার বিশাল কর্মযজ্ঞ । সুস্থ হয়েই তার সুহৃদ জনাব আবদুল জব্বার জলিল এর সহায়তায় চালু করলেন ফ্রি অক্সিজেন পরিসেবা, একটা ফোন কল সাথে প্রশিক্ষিত স্টাফ সহ পালস অক্সিমিটার দিয়ে পরীক্ষার মাধ্যমে বাসায় অক্সিজেন সেবা।

জনাব নাদেল সাহেবের ডাকে সাড়া দিয়ে এস আলম গ্রুপ শহীদ সামসুদ্দিন হাসপাতাল, সিলেট ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও বক্ষ ব্যাধি হাসপাতালে মিটার সহ ৫০ টি অক্সিজেন সিলিন্ডার প্রদান করে। পাশপাশি কাজ শুরু করেন সিলেটে প্লাজমা সেবা। সর্বশেষ তার সহযোগিতায় সিলেটের শহীদ সামসুদ্দিন হাসপাতালের একটি হাই ফ্লো ন্যাসাল ক্যানুলা দেয়া হলো। সাহেদ সাবরিনার মত কিছু আবর্জনা হয়তো আছে, কিন্তু তারাই আলোচনার সব না, নাদেল দের মত বীরদের নেতৃত্বেই আমরা করোনাকে জয় করব। তাই বলি, সাহেদ সাবরিনা ভুলে নাদেলদের কথা বলুন, বিজয় সুনিশ্চিত।

লেখকঃ ডা. মান্না

Facebook Comments

Related Articles