সাহেদের মতো কেউ আওয়ামী লীগে আছে কি না তা দেখা হচ্ছেঃ বিপ্লব বড়ুয়া

করোনাভাইরাস পরীক্ষা না করেই ভুয়া রিপোর্ট দেওয়ার ঘটনায় গ্রেপ্তার রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহেদের মতো আর কেউ আওয়ামী লীগে আছে কি না সেটা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন দলটির কেন্দ্রীয় দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া। শনিবার একটি বেসরকারি টেলিভিশনকে তিনি এ তথ্য জানান।

এর আগে গত ৬ ও ৭ জুলাই উত্তরায় সাহেদের রিজেন্ট হাসপাতাল ও রিজেন্ট গ্রুপের অফিসে অভিযান চালিয়ে কোভিড- ১৯ পরীক্ষার ভুয়া প্রতিবেদন দেওয়ার প্রমাণ পায় র‌্যাব। এই ঘটনায় ৭ জুলাই উত্তরা পশ্চিম থানায় একটি মামলা হয়। মামলার পর থেকে সাহেদ পলাতক ছিলেন।

নয় দিন পর গত বুধবার সাতক্ষীরা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। ওই মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য এখন মামলার তদন্ত সংস্থা গোয়েন্দা পুলিশের কাছে ১০ দিনের রিমান্ডে আছেন সাহেদ।

গ্রেপ্তারের আগে আওয়ামী লীগের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ক কমিটির সদস্য হিসেবে পরিচয় দিয়ে আসছিলেন মোহাম্মদ সাহেদ ওরফে সাহেদ করিম। যদিও এখন আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে সাহেদ আওয়ামী লীগের কোন পদে ছিলেন না।

আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া বলেন, প্রতারক সাহেদ তার গ্রহণযোগ্যতা বৃদ্ধির জন্য বিভিন্ন গণমাধ্যমে গিয়ে টকশো করার সময় আমাদের সংগঠনের উপকমিটির পরিচিতি দিয়েছে। যদিও সে কোন পদে ছিল না। আমাদের দলের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক এ বিষয়ে একটি বিবৃতি দিয়েছেন। এরপরও এটি নিয়ে বিভ্রান্তি তৈরি করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ দুর্বৃত্তায়নের রাজনীতি বন্ধ করতে বদ্ধপরিকর। একদিনে রাজনীতিতে দুর্বৃত্তায়ন হয়নি। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বপরিবারে হত্যার পর প্রায় তিন দশক জুড়ে অগণতান্ত্রিক স্বৈরশক্তি বাংলাদেশের রাষ্ট্র পরিচালনা করেছে। এবং তারা দল গঠন করার জন্য বিভিন্ন দলের মানুষকে লোভ-লালসা দেখিয়েছে, টাকা দিয়ে কিনে তারা দল ভারী করেছে। সেই রাজনীতির ধারাটি এখনো বাংলাদেশের রাজনীতিতে রয়েছে।

Facebook Comments

Related Articles