বিশ্বে ১৫ তম দেশ হিসাবে বাংলাদেশে কম্প্রেসর কারখানা

২০১৭ সালের এপ্রিলের ৬ তারিখ ওয়ালটন দেশের প্রথমবারের মত উচ্চ প্রযুক্তির কম্প্রেসর তৈরির প্লান্ট উদ্বোধন করে। উদ্বোধনের সময় এই প্লান্টটি বাংলাদেশকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যায়। সে সময়ে বিশ্বের ১৫ তম দেশ এবং এশিয়ায় ৮ম দেশ হিসাবে বাংলাদেশ কম্প্রেসর প্রস্তুতকারী দেশ হিসাবে নাম লেখায়।

বাংলাদেশে প্রযুক্তিপণ্যের সম্ভারে এটি ছিল অনন্য উদ্যোগ। জার্মান প্রযুক্তিতে উচ্চমানের কম্প্রেসর বাংলাদেশে তৈরি হবে এটা হয়ত কেউ ভাবেনি। ওয়ালটন এই প্লান্টের জন্য শতাধিক ইঞ্জিনিয়ারদের ইউরোপে পাঠায় উচ্চতর প্রশিক্ষণের জন্য।

শুধুমাত্র উচ্চ প্রযুক্তির এবং উন্নতমানের কম্প্রেসর তৈরির সফলতা ওয়ালটনকে ১২ বছরের গ্যারান্টির নিশ্চয়তা দিতে শক্তি যুগিয়েছে।

বিভিন্ন যন্ত্রাংশের মান নিয়ন্ত্রনের জন্য এই প্লান্টে আছে কোয়ালিটি কন্ট্রোল ল্যাবরেটরি। আর এই ল্যাবরেটরি সব ধরনের প্রয়োজনীয় মেশিনারিজ এ সমৃদ্ধ। কম্প্রসর ফ্যাক্টরিতে আরো আছে যুক্তরাষ্ট্রের থেকে আমদানি করা Hemi Anechoic Acoustic Chamber যেটা নিশ্চিত করে শব্দ উৎপাদন যেন কম হয়। উৎপাদন সুনিপুণ করতে নির্ভুলভাবে ০.২ মাইক্রনে প্রতিটা কম্পোনেন্ট পরিমাপ করা হয়। যেখানে এক মাইক্রন হল এক মিলিমিটারের একহাজার ভাগের এক ভাগ। আর এই নির্ভুল ভাবে সঠিক মাপে সবকিছু করার জন্য ওয়ালটনের রয়েছে জার্মানির তৈরি CMM (Coordinate Measuring Machine)।

বর্তমানে এই ফ্যাক্টরিতে উৎপাদন ক্ষমতা বছরে ৪০ লক্ষ একক। ২০২৫ সালের ভেতর এই উৎপাদন ক্ষমতা ১ কোটি এককে নেয়ার পরিকল্পনা রয়েছে ওয়ালটনের।

মেড ইন বাংলাদেশ এই কম্প্রেসর এখন দেশের সীমানা পেরিয়ে বাইরে রপ্তানি হচ্ছে। তুরস্ক সহ অন্য অনেক দেশ এখন ওয়ালটনের কাছ থেকে কম্প্রেসর নিচ্ছে। জার্মান ভিত্তিক একটি বিখ্যাত কম্প্রেসর কোম্পানি প্রচুর পরিমানে ওয়ালটনের কাছ থেকে যন্ত্রাংশ নিচ্ছে। ওয়ালটনের পণ্যের গন্তব্যে পরিনত হয়েছে অস্ট্রিয়া, স্লোভাকিয়া, ইরাক সহ আরো অনেক দেশ। ওয়ালটনের ভাষ্যমতে বিশ্বখ্যাত একটি রেফ্রিজারেটর প্রস্তুতকারক ওয়ালটনের কাছ থেকে ২০ লক্ষ কম্প্রেসর নেয়ার আগ্রহ দেখিয়েছে। বিশ্বে বর্তমানে ৩৫ টি দেশে যাচ্ছে ওয়ালটনের পণ্য। বিশ্ব বাজারে নিজেদের দখল পোক্ত করার জন্য ইতালি, দক্ষিণ কোরিয়া এবং জাপানের এক্সপার্টরা ওয়ালটনের ডিজাইনের সাথে যুক্ত হয়েছে।

ওয়ালটন বাংলাদেশে প্রযুক্তি পণ্য উৎপাদনে নেতৃত্বে আছে। তারা মাদারবোর্ড, এসএসডি, র‍্যাম ও তৈরি করে।
বাংলাদেশের এগিয়ে যাবার পথে সহযোগি হোক ওয়ালটন।

সূত্র: 1. The Business Standard

2. Defence research forum

Facebook Comments

Related Articles