বৈরুতে ভয়াবহ বিস্ফোরণ; শঙ্কিত লেবানন

বুধবার,৫ আগস্ট,২০২০

লেবাননের রাজধানী বৈরুতের বন্দর এলাকায় ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এ পর্যন্ত পাওয়া খবরে জানা যায় প্রায় ৫০ জন নিহত হয়েছেন, আরো আহত হয়েছেন প্রায় ৩০০০ জন। উদ্ধারকাজ এখন ও চালু আছে। হতাহতের সংখ্যা আরো বাড়বে বলেই ধারণা করা হচ্ছে।

বাংলাদেশ সময় রাত ১০ টা ও স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬ টায় এ ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। প্রত্যক্ষদর্শীদের ভাষ্যমতে তারা দূর থেকে হঠাৎ আগুনের কুন্ডলী ও ধোয়া দেখতে পান। এ সময় অনেকে নিজের ব্যালকনীতে চলে যান। এমন মুহুর্তে বিরাট বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে যার শকওয়েভ ছড়িয়ে পড়ে সারা বৈরুত শহর জুড়ে, আশেপাশের কয়েকটি ভবন ভেঙে পড়ে এবং অন্যান্য ভবনে ফাটল ধরে।অধিকাংশ ভবনেরই জানালার সকল কাচ ভেঙে পড়ে। এমনকি ১৫০ মাইল দূরের সাইপ্রাস থেকেও শকওয়েভের প্রভাব আচ করা যায়।

বৈরুতের বিস্ফোরণ

লেবাননের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জেনারেল মোহাম্মদ ফাহমি প্রধানমন্ত্রী দিয়াবের সঙ্গে ঘটনাস্থল পরিদর্শনকালে জানান, বিস্ফোরণটির কারণ সম্পর্কে জানতে আমাদের তদন্তের জন্য অপেক্ষা করা উচিৎ।
তবে, প্রাথমিক তদন্তে জানা যায়, বিস্ফোরণের স্থানে একটি বিল্ডিং এ বিপুল পরিমাণ নাইট্রেটের মজুদ ছিলো। যেখানে অগ্নিকান্ডের সুত্রপাত হয় এবং তা থেকে পরবর্তীতে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। জানা যায়, গত প্রায় ৬ বছর ধরে ওই বিল্ডিং এ নাইট্রেট মজুদ করা ছিলো। বৈরুত বন্দরের মতো একটি গুরুত্বপূর্ণ ও ঘনবসতিপূর্ণ জায়গায় কীভাবে এত বছর ধরে একটি দাহ্য পদার্থ মজুদ করা ছিলো সে ব্যাপারে তদন্ত চলছে।

লেবাননের প্রধানমন্ত্রী হাসান দিয়াব জানিয়েছেন, বিপজ্জনক ওই গুদামঘরে এই বিস্ফোরণের পেছনে যারা জড়িত তাদেরকে এর চড়া মূল্য দিতে হবে। টেলিভিশনে প্রচারিত এক বক্তব্যে তিনি বলেন, আমি আপনাদের কাছে প্রতিজ্ঞা করছি যে, এই বিপর্যয়ের জন্য দায়ীরা জবাবদিহিতা না করে পাবে না। দায়ীদের এর মূল্য দিতেই হবে। ঘটনাটি ঘিরে একটি তদন্ত চালু করা হবে বলেও জানান তিনি।

অবশ্য, অনেকে এর পেছনে ইসরায়েলের হাত আছে বলেও ধারণা করছেন। লেবানন যখন এক চরম অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক সংকটের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে তখনই এমন ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনা সংঘটিত হলো।
তবে কর্তৃপক্ষ এখনও এ ব্যাপারে চূড়ান্ত বিবৃতি দেয়নি।

এদিকে,মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, তারা নিবিড়ভাবে ঘটনাটি পর্যবেক্ষণ করছে ও সবধরনের সহায়তা করতে প্রস্তুত রয়েছে। মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্র জানান, বিস্ফোরণটির কারণ সম্পর্কে তাদের কাছে কোনো তথ্য নেই। এছাড়া, বিস্ফোরণের পর লেবাননকে সহায়তা প্রদানের ইছা প্রকাশ করেছে তুরস্ক,কাজাখস্তান , ইরান, জর্ডানসহ আরো বহু দেশ।
শেষখবর পাওয়া পর্যন্ত আক্রান্ত এলাকায় বিষাক্ত গ্যাস ছড়িয়ে পড়েছে, ক্ষতিগ্রস্ত ভবনের বাসিন্দাদের নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়ার কাজ চলছে।

নিজস্ব প্রতিবেদক
আবু সালেহ ফাহিম

আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন::
লাইক দিন: https://www.facebook.com/eisomoy365/ (‘এই সময়’ ফেসবুক পেইজ)
সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে: https://youtu.be/ZBMTaqUNbh4

Facebook Comments

Related Articles