খালেদার ‘ভুয়া’ জন্মদিনে উপহার পাঠানোয় চীনা দূতাবাসের ‘দুঃখ’ প্রকাশ

বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার ‘ভুয়া জন্মদিন’ পালন অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা পাঠানোর জন্য ‘দুঃখ’ প্রকাশ করেছে চীনা দূতাবাস। খবর ইউএনবি।

ঢাকার চীনা দূতাবাসের পক্ষ থেকে একে একটি ‘ভুল’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে বলে রবিবার এক সূত্র জানিয়েছে।

জানা যায়, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ঢাকায় চীনা দূতাবাসের সামনে বিষয়টি উত্থাপন করলে তারা এ ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে।

কূটনৈতিক এক সূত্র জানিয়েছে, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে চীনা দূতাবাস জানিয়েছে যে তারা বিষয়টির সংবেদনশীলতা ধরতে না পেরে ‘ভুলটি’ করেছে এবং এ নিয়ে তাদের পক্ষে যথেষ্ট গবেষণা করা হয়নি।

চীনা দূতাবাস এর জন্য ‘ক্ষমা’ চেয়েছে এবং তারা বিষয়টিতে সতর্ক থাকবেন।

চীনা দূতাবাস আরও জানিয়েছে যে তাদের দেশটির পক্ষে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাদের সাথে সবসময় যোগাযোগ রাখার চেষ্টা করা হয় এবং বছরের পর বছর ধরে তারা এ চর্চা করে আসছে।

জন্মদিনে বিএনপি চেয়ারপারর্সনের কাছে ‘নিয়মিত’ এ শুভেচ্ছা পাঠিয়ে আসলেও তারা ‘ভুয়া জন্মদিনের’ বিষয়টি সম্পর্কে অবগত ছিল না বলে জানায়। জন্মদিনে তারা সাধারণত সব নেতাদের কাছে ফুল পাঠিয়ে থাকেন।

বাংলাদেশে খালেদা জিয়ার জন্মদিন পালন নিয়ে বিতর্ক রয়েছে। বিভিন্ন গণমাধ্যমে তার জন্মদিন হিসেবে আগস্ট ৫, ১৯৪৪, আগস্ট ১৯, ১৯৪৭, সেপ্টেম্বর ৫, ১৯৪৬ এবং আগস্ট ১৫, ১৯৪৬ এ চারটি দিন পালনের তথ্য পাওয়া যায়।

সমালোচনা রয়েছে যে, বাংলাদেশ যেদিন জাতীয় শোক দিবস পালন করে সেদিন চীনা দূতাবাস খালেদার ‘ভুয়া’ জন্মদিনে তাকে শুভেচ্ছা জানিয়ে ফুল পাঠায়।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদত বার্ষিকী উপলক্ষে গত ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস যথাযোগ্য শ্রদ্ধা ও মর্যাদার সাথে দিনটি পালন করা হয়েছে।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট একদল বিপথগামী সেনা সদস্য বাংলাদেশের স্বাধীনতার স্থপতি শেখ মুজিবুর রহমানসহ তার পরিবারের বেশিরভাগ সদস্যদের হত্যা করে।

তার দুই কন্যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং তার বোন শেখ রেহানা ওইসময় বিদেশে থাকায় এ হত্যাকাণ্ড থেকে বেঁচে গিয়েছিলেন।

Facebook Comments

Related Articles