করোনা ভাইরাস: প্রিলির জন্য গুরুত্বপূর্ণ তথ্যাদি

মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর,২০২০

উপরোক্ত ওয়ার্কশপে অংশগ্রহণ করতে চোখ রাখুন এই গ্রুপে – ৪২ তম (স্পেশাল বিসিএস) প্রস্তুতি, দিকনির্দেশনা এবং আপডেট

বিশ্ব করােনা ভাইরাস পরিস্থিতি

  •  বর্তমান বিশ্বের ২১৫টি অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে করােনা
  • বর্তমান ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০পর্যন্ত গােটা বিশ্বে আক্রান্ত হয়েছে ৩কোটি ১৩লাখের কাছাকাছি ও সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে প্রায় ২ কোটি ২৯লাখ মানুষ। 
  •  মৃত্যু হয়েছে ৯লাখ ৬৫হাজার ৬৩জনের
  •  বর্তমান করােনায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।
  • মৃত্যের দিক থেকে ২য় অবস্থানে ব্রাজিল
  • আক্রান্তের দিক থেকে ২য় অবস্থানে : ভারত
  • বাংলাদেশে আক্রান্তের সংখ্যা ৩,৫০,০০০
  • বাংলাদেশে মৃতের সংখ্যা ৫০০০+

করােনা ভ্যাকসিন :

  • ২০জুলাই অক্সফোর্ট ভ্যাকসিন। তাদের প্রথম হিউম্যান ট্রায়ালের ফল প্রকাশ করে এবং তারা ঘােষণা করে যে তাদের ভ্যাকসিন নিরাপদ ও কার্যকর।
  • যুক্তরাষ্ট্রের Moderna তাদের তৃতীয় ধাপের ট্রায়াল শুরু করছে।
  •  চীন ২০জুলাই ২০২০ আন্তর্জাতিক জার্নালে তাদের তিনটি ভ্যাকসিনের সফলতার কথা প্রকাশ করে। 
  • ১৪ আগস্ট ২০২০ চীনা কোম্পানি Sinopharm জানায় ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে প্রথম দুই ধাপে তাদের উদ্ভাবিত ভ্যাকসিন অ্যান্টিবডি তৈরি করছে।
  • বর্তমান Sinopharm তৃতীয় ধাপে ট্রায়াল চলছে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও সৌদি আরবে এবং তাদের দাবী ২০২০সালের শেষের দিকে তাদের ভ্যাকসিন বাজাবে আসবে ।
  • ১২আগস্ট ২০২০রাশিয়া বিশ্বের সকল দেশকে অবাক করে দিয়ে কার্যকর ও ব্যবহার উপযােগী একটি ভ্যাকসিনের অনুমােদন দেয়।
  • রাশিয়া তাদের এ ভ্যাকসিনের নাম দেয় Sputnik-V
  • বর্তমান রাশিয়া এ ভ্যাকসিনটি গােটা বিশ্বের মনােযােগ আকর্ষন করতে সক্ষম হয়েছে।

করোনাভাইরাস কী ?

  • করােনাভাইরাস মূলত ভাইরাসের। বড় একটি গােত্র। এটি এমন এক প্রকার ভাইরাস যা মানুষ ও পশু উভয়ের মাধ্যমে ছড়াতে পারে।
  • এ ভাইরাস সর্বপ্রথম সনাক্ত করা হয় ১৯৬০সালে
  • ২০২০সালে এ ভাইরাসটি চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে প্রথম সন্ধান পাওয়া গেছে বলে ধারনা করা হয়েছে।  সার্স ভাইরাসের সাথে এই ভাইরাসের চরিত্রে ৮০%মিল পাওয়া গেছে। 
  •  করােনাভাইরাসের সংক্রমণে শ্বাসকষ্ট হয়
  • করােনাভাইরাসের কারণে বিভিন্ন দেশে চীনের যাত্রীদের জন্য স্ক্রিনিংয়ের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

কোভিড-১৯ রোগ ৬ ধরনের। 

প্রাণঘাতী করােনা ভাইরাস নিয়ে নতুন নতুন গবেষণায় বেরিয়ে আসছে।

বিভিন্ন তথ্য লন্ডনের কিং কলেজের বিজ্ঞানীরা ছয় ধরনের কোভিড-১৯ সন্ধান পেয়েছে।

১.ফ্লুর মতাে জ্বর নেই

২.ফ্লুর মতাে জ্বর আছে

৩.গ্যাস্ট্রোইনটেসটিনাল।

৪.গুরুতর মাত্রা-১ (ক্লান্তিও দুবর্লতা)

৫.গুরুতর মাত্রা-২(বিভ্রান্তি)

৬.গুরতর মাত্রা-৩ (পেট ও

শ্বাস-প্রশ্বাসে সমস্যা )

নতুন প্রজাতি 

এটা করােনা ভাইরাসের সপ্তম বৃহৎ প্রজাতি। চীনের উহানে এ প্রজাতি সনাক্ত করা হয়।

প্রথম সংক্রমণ

  • প্রথম সংক্রমণ ৩১ ডিসেম্বর ২০১৯
  • প্রথম চিহ্নিত হয় ৭ জানুয়ারি ২০২০
  • ১১ জানুয়ারি২০২০ প্রথম চীনে মৃত্যু হয়
  • ২০জানুয়ারি ২০২০ চীনে জরুরি অবস্থা জারি করে
  • ৩০ জানুয়ারি ২০২০ (WHO) থেকে করােনা ভাইরাসকে বৈশ্বিক জরুরি অবস্থা ঘােষণা করে।
  • ২ফেব্রুয়ারি চীনের বাইরে প্রথম ফিলিপাইনে এক চীনা নাগরিকের মৃত্যু হয়।

এ ভাইরাস ছড়ায় চীনের উহানে সামুদ্রিক খাবার বা পশুপাখির বাজার থেকে।

সংক্রমণের সাধারণ লক্ষণসমূহ

  • জ্বর,কাশি, শ্বাসকষ্ট
  • শ্বাসপ্রশ্বাসে সমস্যা।
  • পেটে জ্বালাপােড়া
  • পাতলা পায়খানা

মারাত্মক লক্ষণঃ

  • নিউমােনিয়া
  • সিভিয়ার অ্যাকিউট রেসপিরেটরি সিনড্রোম
  • কিডনি বিকল

করােনা ভাইরাসের ইনকিউবেশন সময়কাল ২থেকে ১৪দিন।

বেশি ঝুঁকি যাদের শিশু ও বয়স্ক ব্যক্তিদের অর্থাৎ যাদের রােগ প্রতিরােধের ক্ষমতা কম

কোয়ারেন্টাইন 

কোয়ারেন্টাইন অর্থ হলাে সঙ্গরােধ করা। অর্থাৎ রােগটি যাতে দ্রুত না ছড়িয়ে যেতে পারে সে জন্য আক্রান্তদের পৃথক করে রাখা।

কোয়ারেন্টাইনের সময়কাল ১৪দিন।

একটি স্থানে নিবিড় পর্যবেক্ষণে ১৪ দিন রাখার পর বোঝা যাবে যে লােকটি আক্রান্ত কি না।

আক্রান্ত প্রথম প্রমােদতরী

করােনা ভাইরাস সর্বপ্রথম যে প্রমােদতরীতে দেখা দেয় সেটির নাম হল ডায়মন্ড প্রিন্সেস। প্রমােদতরীটি আটক করা হয় জাপানের ইয়ােকোহামা বন্দরে এই প্রমােদতরীটি আটক করা হয় ৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০ এই প্রমােদতরীটিতে মােট ৫৬টি দেশের যাত্রী ছিল। এই প্রমােদতরীটিতে মােট যাত্রীছিল প্রায় ২হাজার ৬শত

১৮ ফেব্রুয়ারি প্রমােদতরী থেকে নামতে শুরু করে যাত্রীরা

ক্লোজ কন্ট্যাক্ট ডিটেক্টর 

করােনা ভাইরাস শনাক্ত করার জন্য চালু কৃত নতুন অ্যাপসের।

নাম হল ক্লোজ কন্ট্যাক্ট ডিটেক্টর।

এ অ্যাপটি আবিষ্কার করেছেল চীন সরকার এবং একটি ইলেকট্রনিক কোম্পানি

বাংলাদেশি ফেরতঃ

করােনাভাইরাসের উৎপত্তিস্থল হুবেই প্রদেশের উহান শহর থেকে। বাংলাদেশ সরকার ১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ বিশেষ বিমানে করে ৩১৬ জন বাংলাদেশি নাগরিককে ফেরত আনা হয়। ফেরত বাংলাদেশিদের বাংলাদেশের আশকোনার হাজী ক্যাম্পে

১৪দিন রাখার পর ১৫ তারিখ তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়।

নিজস্ব প্রতিবেদক, এই সময়

Facebook Comments

Related Articles